পুরভোটকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত বিধাননগর, একইসঙ্গে ধরা পড়ল রাজনৈতিক সৌজন্যতার চিত্রও

বিক্ষিপ্ত কিছু অশান্তি ছাড়া শনিবার মোটের উপর শান্তিপূর্ণ ভাবেই শেষ হলো বিধাননগর পৌরনিগমের ভোটগ্রহণপর্ব। বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত বিধাননগর পৌরসভায় ভোট পড়েছে ৭১.৯%

শনিবার সকাল থেকেই পৌরনিগমের ভোটকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধাননগর পৌর এলাকা। বিধাননগরের একাধিক ওয়ার্ডে বহিরাগতদের দিয়ে ছাপ্পা ভোট করানোর অভিযোগ ওঠে শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

সকালে ভোট পর্ব শুরু হতেই বিধাননগরের ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে উত্তেজনা ছড়ায়। এই ওয়ার্ডের ১১ নম্বর বুথে নিজেদের মধ্যে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল ও বিজেপির মহিলা প্রার্থীরা।

বেলা গড়াতেই বিধাননগর পৌরনিগমের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে উত্তেজনা ছড়ায়। তৃণমূলের বিরুদ্ধে বুথের বাইরে অবৈধ জমায়েত ও বুথের ভিতরে অবাধে ছাপ্পাভোটের অভিযোগ তোলে সিপিআইএম । জমায়েত হটাতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়।

পাশাপাশি ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বুথে ছাপ্পা ভোট করানোর অভিযোগ ওঠে। সংবাদমাধ্যম ও পুলিশ বাহিনী সেখানে উপস্থিত হলে ভুয়ো ভোটাররা ভোটকেন্দ্রের শৌচালয়ে আশ্রয় নেয়। সেখান থেকে তাদের আটক করা হয়।

এছাড়াও বিধাননগর পৌরসভার ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ১৮৫ নম্বর বুথে ছাপ্পা ভোটের খবর সংগ্রহ করতে যাওয়ায় সাংবাদিকদের উপর চড়াও হন বহিরাগতরা। আক্রান্ত সাংবাদিকের হাতে চোট লাগে।

৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল ও বিজেপির প্রার্থীরা।

ভোট ঘিরে উত্তেজনার পাশাপাশি রাজনৈতিক সৌজন্যতার চিত্রও শনিবার ধরা পড়ল বিধাননগরে। ভোট দিয়ে বেরিয়ে তৃণমূল প্রার্থী সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে কোলাকুলি করেন বিজেপির বহিস্কৃত নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার।

শনিবার বিধাননগরের ভগবতীদেবী বালিকা বিদ্যালয়ে ভোট দিতে যান বিজেপির বহিস্কৃত নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার। তিনি যখন ভোট দিয়ে বের হন তখন বুথের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থী সব্যসাচী দত্ত ও বিজেপি প্রার্থী দেবাশীষ জানা। জয়প্রকাশ প্রথমে তৃণমূল প্রার্থী সব্যসাচী দত্তর সঙ্গে কোলাকুলি করেন এবং পরে দেবাশীষ জানার সঙ্গে হাত মেলান।

এই প্রসঙ্গে জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, “দুজনেই আমার সহকর্মী। রাজনৈতিক বৈরিতা কারও সঙ্গে থাকতেই পারে, কিন্তু তাই বলে কেউ কারও শত্রু নয়। রাজনীতি তো রাজনীতির ময়দানে। প্রতিপক্ষ অনেক হয়। কিন্তু তাই বলে শত্রুতা কারোও সাথে হয় না”।

Also can read :

After Dinhata, TMC wrest Suri Municipality uncontested