পৌর নির্বাচনে রক্তাক্ত আসানসোল

পৌরনির্বাচনকে কেন্দ্র করে শনিবার দিনভর উত্তপ্ত রইল আসানসোল। বোমাবাজি থেকে শুরু করে গুলি চালানো এমনকি পুলিশের উপর ইটবৃষ্টি পৌরনির্বাচনকে কেন্দ্র করে শনিবার রীতিমতো রক্ত ঝরল আসানসোলে।

ভোট পর্বের শুরুতেই আসানসোল পৌরসভার ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডে কুলটির ডামাগড়িয়ায় বুথে ঢুকে ইভিএম ভাঙচুর করে দুষ্কৃতীরা। এর ফলে ভোটগ্রহণ সাময়িকভাবে বন্ধ থাকে। নতুন ইভিএম আনার পর পুনরায় ওই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ পর্ব শুরু হয়।


২৭ নম্বর ওয়ার্ডে ধাদকায় বুথের মধ্যে গুলি চালানোর অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। অভিযোগ বিজেপি প্রার্থী চৈতালি তিওয়ারির সামনেই সাত থেকে আট রাউন্ড গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নয় গোটা এলাকা।


৪৭ নম্বর ওয়ার্ডে বয়রায় পুলিশকে লক্ষ করে, বহিরাগতরা ইটবৃষ্টি করে। ইটের আঘাতে এক পুলিশ আধিকারিক জখম হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে।
৬৮ নম্বর ওয়ার্ডে কুলটিতে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বোমাবাজির অভিযোগ ওঠে। অভিযোগ তৃণমূল কর্মীরা বুথের দখল নিলে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা তাতে বাধা দেন। দুই পক্ষের মধ্যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়। এবং তখনই বোমাবাজির ঘটনা ঘটে।
৭৮ নম্বর ওয়ার্ডে বার্নপুরে সিপিআইএম এজেন্টকে মারধরের অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বহিরাগতদের বিরুদ্ধে।


আসানসোলের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থী আদর্শ শর্মার উপর হামলা করা হয়। মেরে প্রার্থীর মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি তার মোবাইল ও স্কুটি ছিনতাইয়ের অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে।


৫৪ নম্বর ওয়ার্ডে ভোট দিতে পারেননি আসানসোল দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল। অভিযোগ আসানসোলের এলআইসি বিল্ডিংয়ের ৪৩ নম্বর বুথের ভোটার লিস্টে বিজেপি বিধায়কের নাম থাকা সত্ত্বেও তাকে ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। অগ্নিমিত্রা অভিযোগ করেন, ভোট দিতে গেলে তাকে বলা হয় এবারের ভোটে তিনি ভোট দিতে পারবেন না। ফলত তাকে ভোট না দিয়েই ফিরে আসতে হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানান অগ্নিমিত্রা পাল। পাশাপাশি জামুড়িয়ার উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় অগ্নিমিত্রাকে পুলিশি বাধার মুখে পড়তে হয় বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপি বিধায়ক।
১২ নম্বর ওয়ার্ডে অবাধে ছাপ্পা ও বুথ জ্যামের পাশাপাশি গুলি চালানোর অভিযোগ ওঠে শাসক দলের বিরুদ্ধে।
এছাড়াও আসানসোল ২ নম্বর ওয়ার্ডে সিসিটিভি ক্যামেরা বন্ধ করে অবাধ ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে।
পাশাপাশি ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে সিপিআইএম প্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ ওঠে।
৭৯ নম্বর ওয়ার্ডে সিপিআইএমের বুথ ক্যাম্পে ভাঙচুর করা হয়।
২৯ নম্বর ওয়ার্ডে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল ও বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা।
সব মিলিয়ে পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দিনভর উত্তপ্ত রইল আসানসোল শিল্পাঞ্চল।

Also can read : পুরভোটকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত বিধাননগর, একইসঙ্গে ধরা পড়ল রাজনৈতিক সৌজন্যতার চিত্রও