ফের গোয়া সফরে অভিষেক

ফের গোয়া সফর তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আগামী ২৩শে জানুয়ারি গোয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হবেন তিনি।

সূত্রের খবর, ২৩শে জানুয়ারি থেকে ২৬শে জানুয়ারি পর্যন্ত গোয়ায় থাকবেন অভিষেক।

জানা গিয়েছে, আগামী ২৩শে জানুয়ারি গোয়া পৌঁছে একাধিক দলীয় বৈঠক করবেন অভিষেক। পাশাপাশি সারবেন একাধিক সাংগঠনিক কর্মসূচিও। এই তিন দিনেই গোয়ায় দ্বিতীয় দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে তৃণমূল, এমনটাই খবর পাওয়া যাচ্ছে।

ইতিমধ্যে গোয়ায় প্রথম দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে তৃণমূল। তালিকায় রয়েছেন লুইজিনহো ফেলারিও, চার্চিল অ্যালেমাও, কিরণ কেন্দালকর।

এছাড়াও প্রথম প্রার্থী তালিকায় নাম রয়েছে সন্দীপ অর্জুন ভজরকর, জগদীশ ভবে, সামিল ভলভাইকার, গণপত গাওকর, গিলবার্ট মারিয়ানো, জোস আর ক্যাব্রল, জর্সন ফার্নান্ডেজের।

জানা গিয়েছে জোট নিয়ে কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে এসএমএস করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু কংগ্রেসের তরফে এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া এখনও পর্যন্ত মেলেনি। তৃণমূলের পক্ষ থেকেও কেউ এ বিষয়ে মুখ খোলেননি।

শোনা যাচ্ছে রাহুল গান্ধীও ওই জোটে আগ্রহী নন। অন্যদিকে, জাতীয় কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা জানিয়েছেন এ বিষয়ে তিনি অবগত নন। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে এ বিষয়ে বিশেষ মন্তব্য করতে রাজি নয় কংগ্রেস।

ইতিপূর্বে গোয়াতে অভিষেক কটাক্ষ করে বলেছিলেন, “কংগ্রেসের সমর্থন করার অর্থ বিজেপিকে ভোট দেওয়া। কংগ্রেসকে ভোট দিলে বিজেপির ভোটব্যাঙ্ক বাড়বে। তাতে গোয়ায় বিজেপিকে উৎখাত করা যাবে না।”
অভিষেকের এই মন্তব্যকে কটাক্ষ করে অধীর চৌধুরী বলেছিলেন, “আগেভাগেই হারের দায় সেরে রাখছে। জানে, যে হেরে যাবে। একা লড়ার ক্ষমতা নেই। তাই দায় কংগ্রেসের ঘাড়ে চাপাচ্ছে।  এদিকে, বাংলার লুটের টাকা গোয়ায় নিয়ে গিয়ে কংগ্রেসেরই নেতাদের ভাঙিয়ে দল বাড়াচ্ছে।”

গোয়ায় কংগ্রেস কার্যত একা লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূলের সমর্থনে রয়েছে উদ্ধব ঠাকরে, সঞ্জয় রাউত। ইতিমধ্যেই গোয়ায় ভোটের লড়াইয়ে তৃণমূলের সঙ্গে জোট বাঁধার কথা ঘোষণা করেছে শিবসেনা

ইতিমধ্যেই শিবসেনার পক্ষ থেকে গোয়ার নির্বাচনের জন্য নয়টি বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে। শিবসেনা জানিয়েছে, তারা তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে আসন্ন নির্বাচনে লড়বে।

অন্যদিকে অভিষেকের গোয়া সফরকে একেবারেই পাত্তা দিচ্ছে না গেরুয়া শিবির। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, ” এই সিজনে অনেকেই গোয়া বেড়াতে যান। তিনিও যাচ্ছেন। গোয়াতে কোন আশা নেই তৃণমূলের। তৃণমূল তো ওখানে কেবল দর্শক।”

প্রসঙ্গত আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারি গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচন। চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার দিন ধার্য করা হয়েছে ১০ই মার্চ। এই পরিস্থিতিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গোয়া সফর বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ।

Also read: ফের স্কুল খোলার ক্ষেত্রে তৎপরতা শুরু করল শিক্ষা দফতর

https://thelocaljournalist.com/